শুক্রবার ২৪ নভেম্বর ২০১৭


জনগণ কেন ভ্যাট আতঙ্কে


আমাদের অর্থনীতি :
19.06.2017

 

 

প্রফেসর ড. এম শামসুল আলম

 

বর্তমানে ১৯৯১ সলের ভ্যাট আইনের আওতায় ভ্যাটসহ (ঠঅঞ ওহপষঁপরাব) অথবা ভ্যাট ব্যতীত (ঠঅঞ ঊীপষঁপরাব) উভয় পদ্ধতিতেই পণ্য বা সেবা কেনা-বেচা চলে। তবে ২০১২ সালের নতুন ভ্যাট আইন মতে কেবলমাত্র ভ্যাট ইনক্লুসিভ পদ্ধতিতে বেচা-কেনা হবে। আগামী ১ জুলাই থেকে এ পদ্ধতি কার্যকর হতে যাচ্ছে। সেবা বা পণ্য ভেদে ভ্যাটহার তারতম্য রয়েছে। নতুন ভ্যাট আইনে ভ্যাটহারে কোনো তারতম্য নেই। ভ্যাট আওতাভুক্ত যেকোনো পণ্য বা সেবার ভ্যাটহার হবে এক ও অভিন্ন, ১৫ শতাংশ। এই এক ও অভিন্ন ১৫ শতাংশ ভ্যাটহারের বিরুদ্ধে ভোক্তাসহ সকল মহলের আপত্তির মুখে সে হার ১৩ শতাংশ করার আভাস পাওয়া যায়। অবশেষে সে সম্ভাবনা অর্থমন্ত্রী নাকচ করে দেন। গত ১ জুন সংসদে পেশকৃত ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ১৫ শতাংশ এক ও অভিন্ন ভ্যাটহারের প্রস্তাব করেন। সকল পক্ষগণের পক্ষ থেকে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়েছে, প্রস্তাবিত এই ভ্যাটহার বাস্তবায়িত হলে পণ্য বা সেবার মূল্যহার বাড়বে। অর্থাৎ মূল্যস্ফীতি হবে। ক্যাব বলেছে, ভ্যাটহার এত বেশি আরোপিত হওয়ায় ভোক্তারা এখন রিতিমতো আতঙ্কগ্রস্ত।

দুই. ভ্যাটের নিম্নরূপ হিসাব দেখিয়ে এনবিআর (জাতীয় রাজস্ব বোর্ড) বলেছে, মূল্যস্ফীতি হবে না: ১.  ভ্যাটহার ১৫ শতাংশ। এক্সক্লুসিভ পদ্ধতিতে ভোক্তা সেবা বা পণ্যের খুচরা মূল্যের সঙ্গে পৃথকভাবে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট দেন। ইনক্লুসিভ পদ্ধতিতে সে ভ্যাটহার হবে ১৩.০২ শতাংশ। অর্থাৎ ১৫ শতাংশের পরিবর্তে তা হয় প্রায় ২ শতাংশ কম। ২. ধরা যাক খুচরা বিক্রেতা ১১৫ টাকা পাইকেরি দামে কোন পণ্য বা সেবা ক্রয় করেছেন। এর মধ্যে ইনক্লুসিভ পদ্ধতিতে ১৫ শতাংশ হিসবে ১৫ টাকা ভ্যাট অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। তিনি তা বিক্রয় করেন ১৩৫ টাকায়। এক্সক্লুসিভ পদ্ধতিতে ৪ শতাংশ হারে ভোক্তা ভ্যাট দেয় ৫.৪০ টাকা। সর্বমোট ভ্যাট হয় ২০.৪০ টাকা। ভোক্তার খরচ হয় ১৪০.৪০ টাকা। সে ভ্যাট ইনক্লুসিভ পদ্ধতিতে হবে ১৭.৬০ টাকা। বিক্রেতা ১৫ টাকা রেয়াত/ফিরে পাবেন। ভোক্তার খরচ হবে ১৩৭.৬০ টাকা। অর্থাৎ নতুন আইনে ভ্যাট হ্রাস বা ভোক্তার করভার লাঘব হবে ২.৮০ টাকা। ৩.  গ্যাসে ভ্যাট বর্তমানে ১৫ শতাংশ, নতুন আইনেও ১৫ শতাংশ। ৪. বর্তমানে এক্সক্লুসিভ পদ্ধতিতে ভোক্তারা বিদ্যুতে ভ্যাট দেয় ৫ শতাংশ। বিদ্যুতের খুচরা বিক্রয় মূল্যহার ৯ টাকা হলে ভ্যাট ০.৪৫ টাকা। অর্থাৎ ভোক্তা বিল দেবে ৯.৪৫ টাকা মূল্যহারে। বিদ্যুতের ক্রয় মূল্যহার ৫.৯০ টাকা হলে এর সঙ্গে ১৫ শতাংশ হারে ০.৭৭ টাকা ভ্যাট অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। সর্বমোট ভ্যাট ১.২২ টাকা। ইনক্লুসিভ পদ্ধতিতে হবে ১.১৭ টাকা। প্রতি একক বিদ্যুতে বিক্রেতা রেয়াত/ফিরে পাবেন ০.৭৭ টাকা। ভোক্তার বিল হবে ৯.৪০ টাকা মূল্যহারে। অর্থাৎ নতুন আইনে ভ্যাট হ্রাস বা ভোক্তার করভার লাঘব হবে প্রতি একক বিদ্যুতে ০.০৫ টাকা। (চলবে-০১)

লেখক: জ্বালানি বিশেষজ্ঞ