বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭


অবৈধ পন্থায় রাষ্ট্রক্ষমতা দখলে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে সরকার : ফখরুল


আমাদের অর্থনীতি :
15.11.2017

শাহানুজ্জামান টিটু: বর্তমান সরকার দেশে ত্রাস সৃষ্টি করে আবারো অবৈধ পন্থায় রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এ অভিযোগ করেন। ‘রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আসা নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা দায়ের এবং অনেক নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের ঘটনায়’ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এই বিবৃতি দেওয়া হয়।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপি ও দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা এখন আকাশচুম্বি। বিএনপির প্রতি জনগণের ভালবাসা ও ব্যাপক জনসমর্থনে ইর্ষান্বিত হয়ে সরকার এখন আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। মন্ত্রী-এমপিদের বেপরোয়া দাম্ভিকতা আরো তীব্র মাত্রা ধারণ করেছে। এই কারণে বিএনপির যেকোন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা এবং নেতাকর্মীদেরকে গ্রেফতারের মাধ্যমে কারান্তরীণ ও দেশে ত্রাস সৃষ্টি করে আবারো অবৈধ পন্থায় রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে সরকার।

তিনি অভিযোগ করেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভায় ব্যাপক লোকসমাগম দেখে আতঙ্কিত হয়ে সভাস্থলে আসতে নেতাকর্মীদেরকে প্রচন্ড বাধাদানের পাশাপাশি বিভিন্ন স্থান থেকে অনেক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অসংখ্য নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বানোয়াট ও কাল্পনিক মামলা দায়ের করে তাদেরকে বিভিন্নভাবে হেনস্তা করছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। কিন্তু এধরণের অপকর্ম ও বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে গ্রেফতার করে বিএনপির প্রতি মানুষের সমর্থন ও যেকোন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে জন¯্রােতকে ঠেকানো যাবে না- বলে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, জনগণের মিলিত শক্তি বর্তমান শাসকগোষ্ঠীর সকল চক্রান্ত, অপকৌশল ও ভয়াবহ দু:শাসনকে রুখে দিবে। আমি অবিলম্বে পুলিশ কর্তৃক অন্যায়ভাবে গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীসহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা কাল্পনিক ও ভুয়া মামলা প্রত্যাহার এবং গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। সম্পাদনা: তরিকুল ইসলাম সুমন