রবিবার ২১ জানুয়ারী ২০১৮


জনগণের বাকস্বাধীনতা এবং গণতন্ত্র এখন


আমাদের অর্থনীতি :
13.01.2018

অ্যাড. তৈমূর আলম খন্দকার

 

৫ জানুয়ারি ২০১৮ গণতন্ত্র হত্যা ও গণতন্ত্র সুরক্ষা দিবস হিসেবে পালন করেছে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ। সুরক্ষা ও হত্যা দুটি বিষয়ই ‘গণতন্ত্র’কে নিয়ে। গণতন্ত্রের সংজ্ঞা যদি আমরা পর্যালোচনা করি তবে একটা বিষয় পরিষ্কার হয়ে উঠে যে, ভিন্নমতকে বা সমালোচনাকে সহ্য করাই গণতন্ত্রের প্রধান উপাদান। কিন্তু গণতন্ত্রকে রক্ষা করার নামেই গণতন্ত্রের উপর হামলা হয়, গণতন্ত্রের মায়া কান্না গণতন্ত্র হত্যাকারীরাই করে আসছে। সংবিধানের ৩৯নং অনুচ্ছেদ মোতাবেক প্রত্যেক নাগরিকের বাক ও ভাবপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নিশ্চিত করা হলেও এ নিশ্চয়তা ভুলণ্ঠিত হচ্ছে বারবার। সংবিধানের ৩৫(২) ধারায় বলা হয়েছে যে, ‘এক অপরাধের জন্য কোনো ব্যক্তিকে একাধিক ফৌজদারিতে সোপর্দ ও দ-িত করা যাইবে না।’ অথচ দৈনিক আমার দেশ সম্পাদক মাহবুবুর রহমানের এক বক্তব্যকে কেন্দ্র করে ২২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বিভিন্ন জেলায়। অধিকাংশ মামলার বাদী আইনজীবী। মামলা রুজু হওয়ার সংবাদ প্রায় প্রতিদিনই সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে। দলীয় নেতাদের গুড-বুকে থাকার জন্য সংবিধানের ৩৫(২) অনুচ্ছেদের বরখেলাপ করে একই অপরাধের উপর একাধিক মামলা করতে পারে। কিন্তু যে ম্যাজিস্ট্রেট একই অপরাধের জন্য বিভিন্ন জেলায় ২২টি মামলা আমলে নেন, তখন কি সংবিধান লংঘিত হয় না? এ অবস্থার মূল কারণ যেহেতু রাষ্ট্রে আইনের শাসন টেলিস্কোপ দিয়ে খুঁজতে হয়। জবাবদিহিতা ও গণতন্ত্র সমানতরাল গতিতে হলেও পরষ্পর বিপরীত গতিতে চলে। যেখানে গণতন্ত্র বিলিন হতে থাকে সেখানেও জবাবদিহিতা দিনদিন জ্বালানি সংকটাপন্ন প্রদীপের মতো নিভে যায়। জবাবদিহিতা জ্বালানি শক্তি হচ্ছে গণতন্ত্র। যেখানে গণতন্ত্র নেই সেখানে জবাবদিহিতা থাকে না। এবং সে কারণেই গণতন্ত্র বা আইনের শাসন রক্ষায় নিয়োজিত কর্মকর্তাই আজকাল আইনের অপপ্রয়োগ করছেন। ০৮-১-২০১৭ তারিখে ‘দ্বিতীয় বিয়ে লুকাতে ডি.আই.জি’র কা-’ শিরোনামে একটি বহুল প্রচারিত পত্রিকায় সংবাদ পরিবেশিত হয়েছে। সংবাদটিতে দেখা যায় ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমান দ্বিতীয় বিবাহ গোপন না করায় তার স্ত্রী মরিয়ম আক্তারকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছেন। তিন সপ্তাহ কারাভোগের পর মরিয়ম আক্তার জামিন পেয়েছেন। পুলিশি ক্ষমতায় এ চিত্র গোটা বাংলাদেশের চিত্র বললে কি ভুল হবে? দেশের বোদ্ধা মহল মনে করেন যে, রাজনৈতিকভাবে অপব্যবহারের কারণে পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা কমছে। এ সংকট দূর করতে সুশাসনের বিকল্প নেই।

লেখক : কলামিষ্ট ও বিএনপি’র চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা