রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮


অনিকের অসাধারণ বোলিংয়ের পরও মোহামেডানের হার


আমাদের অর্থনীতি :
12.02.2018

 

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগুন ঝরিয়েছিলেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের তারকা কাজী অনিক ইসলাম। তার বোলিং তোপেই ২৩১ রানের সাদামাটা স্কোর গড়ে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। কিন্তু অনিকের দারুণ বোলিংয়ের পরও ম্যাচ জিততে পারেনি মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে এখন পর্যন্ত কোন জয়ের মুখ দেখেনি দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। রূপগঞ্জের কাছে ৬২ রানে হেরে গেছে দলটি। গতকাল রূপগঞ্জের দেওয়া ২৩১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দারুণ সূচনা পায় মোহামেডান। রনি তালুকদার ও পাকিস্তানি ক্রিকেটার সালমান বাট ৪৮ রানের জুটি গড়েন। তবে ৯ রানের ব্যবধানে এ জুটি ভাঙলে চাপে পরে যায় দলটি। ইরফান শুক্কুরকে নিয়ে তৃতীয় উইকেটে ৪১ রানের জুটি গড়ে চাপ সামলে নেওয়ার চেষ্টা করেন অধিনায়ক শামসুর রহমান শুভ। এ জুটি ভাঙতেই তাসের ঘরের মতো ভেঙে পরে মোহামেডানের ব্যাটিং লাইন আপ। মোহাম্মদ শহীদ ও মোশারফ হোসেন রুবেলের বোলিং তোপে পরে ৪৮ রান তুলতেই শেষ ৭ ব্যাটসম্যানকে হারায় তারা। ৪৪.৩ ওভারে ১৬৯ রানে অলআউট হয় দলটি ফলে ৬২ রানের বড় ব্যবধানেই পরাজয় মানতে বাধ্য হয় মোহামেডান।

 

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন শুভ। এছাড়া রকিবুল ৩২ ও রনি তালুকদার ৩০ রান করেন। রূপগঞ্জের পক্ষে মাত্র ২৩ রানের খরচায় ৪টি উইকেট নেন মোশারফ। এছাড়া আসিফ হাসান ও শহীদ ৩টি করে উইকেট পান।

এর আগে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে রূপগঞ্জ। শুরুটাও করে দারুণ। দুই ওপেনার আব্দুল মজিদ ও সালাহউদ্দিন পাপ্পুর ব্যাটে আসে ৪৮ রানের জুটি। এ জুটি ভাঙেন কাজী অনিক। এরপর দ্রুত সামি আসলামকে তুলে নেন তিনি। ফলে চাপে পরে যায় রূপগঞ্জ। তবে তৃতীয় উইকেটে নাঈম ইসলামকে নিয়ে ৮০ রানের জুটি গড়েন মজিদ। মূলত এ জুটিতে ভর করেই লড়াইয়ের পুঁজি পায় তারা। তবে ১ রানের ব্যবধানে এ দুই ব্যাটসম্যানকে হারালে আবার চাপে পরে যায় দলটি।

 

ষষ্ঠ উইকেটে অভিষেক মিত্রকে নিয়ে তুষার ইমরানের ৮২ রানের দারুণ এক জুটিতে লড়াইয়ের পুঁজি পায় রূপগঞ্জ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭০ রানের ইনিংস খেলেন মজিদ। ১১৫ বলে সমান ৩টি করে চার ও ছক্কায় এ রান করেন তিনি। ৩৪ বলে ৫টি চারে ৪০ রান করেন তুষার। ৪৫ বলে ৪৫ রান করে অপরাজিত থাকেন অভিষেক। ফলে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৩১ রানের বেশি করতে পারেনি রূপগঞ্জ।

মোহামেডানের হয়ে ৫টি উইকেট নিয়েছেন কাজী অনিক। এনামুল হক পেয়েছেন ২টি উইকেট।