শুক্রবার ২৫ মে ২০১৮


ভিআইপি তৈরির কারখানা বাংলাদেশ!


আমাদের অর্থনীতি :
14.02.2018

মোহাম্মদ আবু নোমান : বাংলাদেশই একমাত্র দেশ পরপর পাঁচবার দুর্নীতি ব্যাপকতার ধারণার সূচকে শীর্ষে অবস্থান করেছিল। এই শীর্ষ অবস্থানের জন্য কারণ হতে যেয়েই কি এদেশে হয়েছে ভিআইপি তৈরির কারখানা! যে কারখানা এখনো ক্রিয়াশীল রয়েছে পূর্ণোদ্যমে! আমজনতার রক্ত চুষে ভিআইপি! স্বাধীনতার ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বিদেশি মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা স্মারক হিসেবে দেওয়া ক্রেস্টে স্বর্ণ জালিয়াতি করা হয়। আমলাতন্ত্র ও শোষক ছাউনির উচ্চাভিলাষে প্রমাণ হয়েছে, মানুষের অসীম-অনন্ত চাহিদা বা নিজের কু-মানসিকতা তাকে নিয়ে যায় এক অন্ধ জগতে। নৈতিকতার অবক্ষয় কোন পর্যায়ে, তা ক্রেস্ট জালিয়াতির ঘটনা থেকে বোঝা গিয়েছিল।

এর বাইরে ক্ষমতাসিন নেতা, মন্ত্রীরা মুক্তিযুদ্ধকে ব্যবহার করে নিজেদের সব সুযোগ-সুবিধা নিচ্ছেন। মুক্তিযুদ্ধ আমাদের উত্তরাধিকার। সু-অধিকারী কখনো তার উত্তরাধিকারকে বেচে না। অথচ ক্ষমতাসীনরা মুক্তিযোদ্ধা সনদ ও চেতনাকে বিক্রি করে নিজেদের জীবনের সব সুযোগ-সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করছেন। সামনে হয়তো ‘ভিআইপি’ সার্টিফিকেট বিক্রি করার সুযোগ হবে! দেশের সব টাকা যাদের কাছে। বিনা শুল্কে গাড়ি আমদানী, উল্টো পথে সেই গাড়ি; সিংগাপুর, ব্যাংকক কিংবা আমেরিকায় চিকিৎসা, স্ক্যান্ডিনেভিয়ান কান্ট্রিগুলোতে অবকাশ; লন্ডনে ফাস্ট, দুবাইতে সেকেন্ড, মালয়েশিয়ায় থার্ড হোম, কলকাতায় ঈদের কেনাকাটা। এসব ‘অতিবিশিষ্ট’ জনদের স্ট্যাটাসের সাথে আমাদের রাস্তাঘাট যায় না! কারণ তাদের এসি গাড়িতে বসে থাকতে কষ্ট লাগে! এদেশের সাধারণ মানুষ মাথার ঘাম পায়ে ফেলে, রক্ত পানি করে দেশকে তিল তিল করে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, আর সুবিধার উপরেও সু্বধিা ভোগ করবে কথিত ভিআইপিরা! জনগণের সময়ের মূল্য নেই, তাদের বরাদ্দ শুধু তলার ভাঙা, ধুলা, ময়লার রাস্তা। যে দেশে বেশির ভাগ মানুষ গরিব, লাখো ভিক্ষুক, কোটি বেকার, যে দেশে ত্রাণ ও জাকাতের কাপড় নিতে পায়ের নিচে পিষ্ঠে মরে, লক্ষ লক্ষ লোক খোলা আকাশের নিচে ঘুমায়, সে দেশের রাতারাতি আঙুল ফুলে কলাগাছা ভিআইপি, শ্রমিক নেতা, আয়রোজগারহীন ছাত্রনেতা, বুদ্ধিজীবীদের একটু আলাদা লেন করে দিলে এমন কি ক্ষতি?

নির্বোধ জনতা যখন শাসক বদলাতে পারেন না, যখন শাসকেরাই পছন্দ মতো জনগণ বানান! সে দেশতো সীমাহীন ক্ষমতার দাপটে গজিয়ে উঠা, অবাধ স্বাধীনতা ভোগকারী স্বেচ্ছাচারী ভিআইপিদের জন্যই! একেবারে বললেই হয়- বাই দ্য ভিআইপিজ, অব দ্য ভিআইপিজ, ফর দ্য ভিআইপিজ! যেখানে ভিআইপিতন্ত্র, পরিবারতন্ত্র, আমলাতন্ত্র, এমপিতন্ত্র, মন্ত্রীতন্ত্রের ছড়াছড়ি সেখানে আর যাই থাকুক অন্তত গণতন্ত্র না থাকলেও স্বতন্ত্র লেনও থাকবে না এটা কি হয়? আলাদা লেনের প্রস্তাব কোনো বিশেষ মহলকে অসাংবিধানিক ও অনৈতিক সুবিধা প্রদানের উদ্যোগ গণতান্ত্রিক চর্চার জন্য আত্মঘাতীমূলক নয়কি? সাইকেল আরোহী ছাড়া পৃথিবীর কোথাও ভিআইপিদের জন্য আলাদা লেইন আছে কি? আলাদা লেন না করে যানজট কিভাবে কমানো যায় তার ব্যবস্থা করা জরুরি।

লেখক : প্রাবন্ধিক ও কলাম লেখক/সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ