রবিবার ২৪ জুন ২০১৮


মাংসের বাজারে অস্থিরতা


আমাদের অর্থনীতি :
14.06.2018

 

 

আতাউর রহমান: বাজারে স্থিতিশীল রয়েছে অধিকাংশই নিত্য পণ্যের দাম। তাই এবার হয়তো কিছুটা স্বস্তিদায়ক হতে পারে রোজাদারদের ঈদ। অন্যান্যবার ঈদে মসলার দাম বাড়লেও, এবার বরং কমেছে। অস্থিরতা কেবল মাংসের বাজারে। ৪৫০ টাকার গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ টাকায়। ব্রয়লার মুরগিতেও বেড়েছে ২০ টাকা।রোজা ২৯টি হলে আগামী শনিবার ঈদ-উল ফিতর। হাতে আছে মাত্র দুই দিন। তাই রাজধানীর নিত্যপণ্যের বাজারগুলোতেও উপচেপড়া ভীড় ক্রেতাদের।

ঈদ মানে নানা পদের সেমাইয়ের আয়োজন। খোলা লাচ্ছি সেমাই কেজিতে বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা। আর লম্বা সেমাই ৬০ টাকা। দুইশ গ্রামের প্যাকেট সেমাই বিক্রি  হচ্ছে ৩০ টাকা। চিনি তিন টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৫৫ টাকায়। দেড় টাকা কমেছে সয়াবিন তেলের লিটারে।

সরবরাহ ঘাটতি দেখিয়ে দাম বাড়িয়েছেন মাছ বিক্রেতারা।সিটি করপোরেশনের বেঁধে দেয়া দামে খাসির মাংস বিক্রি হলেও গরুর মাংসের ব্যবসায়ীরা মানছেন না নির্দেশ। বিক্রি করছেন ৩০ টাকা বেশি দরে।এদিকে ২০ টাকা বেড়ে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৬৫ টাকা।অন্যান্য চালের দাম ঠিক থাকলেও পোলাওয়ের চালে কেজিতে বেড়েছে ১ টাকা ।