সোমবার ২৫ জুন ২০১৮


‘ঈদে বাসা-বাড়ি, অফিসে নিজস্ব সিকিউরিটি  গার্ড রেখে যাবেন’


আমাদের অর্থনীতি :
14.06.2018

মাসুদ আলম: ঈদ উপলক্ষ্যে বাসে বাড়তি ভাড়ার নামে কোথাও নীরব চাঁদাবাজি চলছে না বলে দাবি করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। গতকাল বুধবার দুপুরে রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।

কমিশনার বলেন, আমরা পরিবহন মালিকদের সাথে কথা বলেছি। তারা নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া না নেয়ার নিশ্চিয়তা দিয়েছেন। প্রতিটি কাউন্টারে ভাড়ার তালিকা রয়েছে। এখানে বাস মালিক সমিতির লোকসহ আমাদের পুলিশ সদস্যরা রয়েছেন। যাত্রীদের কাছ থেকে যেন বেশি ভাড়া নিতে না পারে সেজন্য মোবাইল কোর্ট রয়েছে। আমি নিজে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা বলেছেন, কাউন্টারে বেশি ভাড়া নিচ্ছে না। ঈদ বকশিসের নামে কোথাও নীরব চাঁদাবাজি নেই। তবে যদিও এমন ঘটে থাকে তাহলে চাঁদাবাজরা যেই হোক তাদের আইনের আওতায় আনতে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতিতে রয়েছে।

ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে কমিশনার আরও বলেন, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি, টানাপার্টি বা ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে ডিএমপি শক্ত অবস্থানে রয়েছে। তাদের ধরতে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত রয়েছে। উৎসবমুখর ও নিরাপদ পরিবেশে নগরবাসী ঈদ উদযাপনের জন্য নিজের বাড়ি যাচ্ছে। ডিএমপি’র সদস্যরা ২৪ ঘন্টা নিরাপত্তা দিতে তৎপর রয়েছে। ঈদকে ঘিরে পুলিশের টহল ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হয়েছে। টিকিট কালোবাজারি ধরতে আমরা কাজ করছি।

তিনি আরও বলেন, ঈদের ছুটিতে আমরা প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে পাহাড়া দিতে পারবো না। তবে অনুরোধ করছি বাসা-বাড়ি, অফিসের নিরাপত্তার জন্য নিজস্ব সিকিউরিটি গার্ড রেখে যাবেন। সিকিউরিটি গার্ডের সাথে সমন্বয় করে পুলিশ নিরাপত্তা দিবে। সকলের সহযোগিতায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ একটি সমন্বিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা দিয়ে যাবে। এর আগে ডিএমপি কমিশনার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে বিভিন্ন বাস কাউন্টার পরিদর্শন করে যাত্রীদের শতভাগ সেবা নিশ্চিত করার নির্দেশনা দেন। এর পরপরই বিভিন্ন গাড়িতে উঠে ড্রাইভার ও যাত্রীদের সাথে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কথা বলেন এবং তাদের মাঝে ট্রাফিক নির্দেশনামূলক লিফলেট বিতরণ করেন কমিশনার।